IBBL প্লাটিনাম ডেবিট কার্ড সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন।

বন্ধুরা আপনারা যারা মাস্টার কার্ড নিয়ে চিন্তিত আছেন। আপনারা IBBL প্লাটিনাম ডেবিট কার্ডটি ব্যাবহার করতে পারেন।

IBBL প্লাটিনাম ডেবিট কার্ডটি হলো একটি Dual Currency সাপোর্টেড কার্ড। অর্থাৎ, এই কার্ডে টাকার পাশাপাশি ডলারও সাপোর্ট করবে।

বর্তমানে আমরা সবাই কম বেশি অনলাইনের উপর নির্ভর হয়ে পড়েছি। বিদেশি কোনো প্রোডাক্ট কিনতে হলে মাস্টার কার্ডের প্রয়োজন হয়। কারণ সাধারণ কার্ড গুলো ডলার সাপোর্ট করে না।

আবার যারা অনলাইনে বিভিন্ন ব্যবসার সাথে জড়িত। অথবা বিভিন্ন কন্টেন্ট ক্রিয়েটর। যেমন: ইউটিউবিং, ব্লগিং, ফ্রিল্যান্সিং ইত্যাদি করেন। তাদের জন্যও অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় হলো মাস্টার কার্ড।

অর্থাৎ, মাস্টার কার্ড আমাদেরকে সাথে বৈদেশিক অর্থনৈতিক ব্যবস্থার সাথে যুক্ত হতে সাহায্য করে।

আরও পড়ুন,

IBBL প্লাটিনাম ডেবিট কার্ড এর সুবিধাসমূহ

  • গুগল অ্যাডসেন্স থেকে পেমেন্ট নিতে পারবেন।
  • ইন্টারন্যাশনাল ওয়েবসাইট গুলো থেকে ডলার ব্যবহার করে কেনাকাটা করতে পারবেন।
  • ফেসবুকে পোস্ট বুস্ট করতে পারবেন।
  • অন্যান্য মাস্টার কার্ডের তুলনায় এক বছর মেয়াদে অনেক কম ফী নিয়ে থাকে।
  • গুগল প্লে-স্টোর সহ অন্যান্য সকল ওয়েবসাইটের পেইড সফটওয়্যার, থিম, প্লাগইন কিনতে পারবেন।
  • যেকোনো দেশের এটিএম বুথ থেকে টাকা উত্তোলন করতে পারবেন। এজন্য এটিএম বুথে ভিসা সাপোর্ট থাকতে হবে।
  • সার্কভূক্ত দেশের ভিতরে 5000$ এবং সার্কভূক্ত দেশের বাইরে 7000$। সর্বমোট 12000$ এক বছরে ব্যবহার করতে পারবেন।
  • প্রতিটি ট্রানজেকশনে সর্বোচ্চ 300$ পর্যন্ত ট্রানজেকশন করতে পারবেন।

এছাড়াও মাস্টার কার্ডের অন্যান্য সকল সুবিধা গুলো পাবেন।

IBBL প্লাটিনাম ডেবিট কার্ড কিভাবে নিবেন?

প্রথমত ইসলামী ব্যাংকে আপনার একটি কারেন্ট বা সেভিংস একাউন্ট থাকতে হবে। আগে থেকে একাউন্ট না থাকলে নতুন একাউন্ট খুলতে হবে।

  • ন্যাশনাল আইডি কার্ড (NID) এর ২টি ফটোকপি।
  • পাসপোর্ট সাইজের ২ কপি ছবি।
  • যেহেতু আপনি ইন্টারন্যাশনাল ট্রানজেকশন করবেন। এজন্য আপনার পাসপোর্ট থাকতে হবে। আপনার পাসপোর্ট না থাকলে। পরিবারের অন্য যেকোনো সদস্যের পাসপোর্ট দিয়ে একাউন্ট তৈরি করতে পারবেন। তবে যার পাসপোর্ট দিয়ে একাউন্ট তৈরি করবেন। একাউন্ট টি মূলত তার নামেই করতে হবে।
  • ইসলামী ব্যাংকের প্লাটিনাম ডেবিট কার্ড টি এক বছর ব্যবহার জন্য আপনাকে ১১০০ টাকা ফী দিতে হবে। পরবর্তীতে ৬০০ টাকা করে এক বছরের জন্য ফী দিতে হবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।